বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের হওয়া মামলায় বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা বিএনপির ৩৯ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বুধবার দুপুরে তারা বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিচারক মো. রফিকুল ইসলাম তা নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এরা হলেন- মেহেন্দিগঞ্জ পৌর বিএনপির সভাপতি জিয়াউদ্দিন সুজন, সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম মোল্লা, জেলা (উত্তর) যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন পিপলু, উপজেলা যুবদলের সভাপতি সৈয়দ রিয়াজ উদ্দিন শাহিন লিটন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মাহমুদ খান, রেজাউল খান, রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী দিনু মিয়া, সৈয়দ তুহিন, ইউনুছ হাওলাদার, হালিম ফকির, পারভেজ খন্দকার, প্রিন্স মাহমুদ, সোলায়মান নিক্সন, রুপক মিয়াজি, আকতার মুন্সি, জামাল নলী, সাইফুল ইসলাম, শাহিন হাওলাদার, আমজাদ পোদ্দার, ফারুক হোসেন, সৈয়দ আকবর, খোকা হাওলাদার, মিল্টন চৌধুরী, রিপন চৌধুরী, আমির দেওয়ান, সবুজ মাঝি, নাছির ফকির, মুরাদ হাওলাদার, মনির হোসেন, মনির সওদাগর, মঞ্জু ভূঁইয়া, কামাল মাঝি, মাহেব দেওয়ান, মিজান মাঝি, জাহাঙ্গীর হাওলাদার, মামুন হাওলাদার, বাতেন শাহ ও নজরুল খান।



আসামিপক্ষের আইনজীবী আব্দুল মালেক জানান, গত ৪ নভেম্বর একাদশ জাতীয় নির্বাচন বানচালের উদ্দেশ্যে জনমনে ভীতি ও আতঙ্ক সৃষ্টির মাধ্যমে অন্তর্ঘাতমূলক কার্যক্রম করার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীরা মেহেন্দিগঞ্জ আম্বিকাপুরে অটোবাইক মালিক ও চালক সমিতি অফিসের সামনের রাস্তায় নাশকতা করতে জড়ো হয় বলে মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়। এ সময় তারা বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। এছাড়া একটি অটোবাইক ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। পরে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নেতাকর্মীরা পালিয়ে গেলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ভাঙা অটোবাইক, তিনটি বোমা সাদৃশ্য পেট্রল বোমা, অটোবাইকের তিনটি আংশিক পোড়ানো টায়ার, ৩ ফুট করে লম্বা ১৪টি লোহার রড, ৮টি গাব গাছের লাঠি উদ্ধার করে বলে মামলায় উল্লেখ রয়েছে।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় একই দিন মেহেন্দিগঞ্জ থানার পিএসআই মোস্তফা কামাল উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুক্তাসহ নামধারী ৪১ জন ও অজ্ঞাতনামা ৫০ জনের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেন। দায়ের করা মামলার আসামি হিসেবে এজাহারনামীয় ওই ৪১ নেতাকর্মী গত ১৩ নভেম্বর উচ্চ আদালতে জামিনের আবেদন করেন। উচ্চ আদালত তাদের চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত জামিন দেন। ওই মামলায় জামিনের মেয়াদ শেষ হলে বুধবার বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হলে বিচারক তাদেরকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া গুরুতর অসুস্থ””’

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ও বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া গুরুতর অসুস্থ। গত ৩ জানুয়ারি মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণজনিত সমস্যায় (স্ট্রোক) আক্রান্ত হয়ে তিনি রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সানাউল্লাহ মিয়া বর্তমানে রাজধানীর নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি আছেন। চিকিৎসকরা তাকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ দিয়েছেন।



সানাউল্লাহ মিয়ার সহকারী আইনজীবী মোহাম্মদ কামরুজ্জামান সুমন বলেন, ‘স্যার গত ৩ জানুয়ারি হঠাৎ অসুস্থ বোধ করেন এবং কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। সেখানে তার অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাকে রাজধানীর আগারগাঁও নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।’

কামরুজ্জামান সুমন আরো বলেন, ‘স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ায় স্যারের ডান হাত ও পা প্যারালাইজড হয়ে গেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকরা তাকে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এখন তাকে থাইল্যান্ডে নিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। এ ছাড়া কথা বলতেও তার কিছুটা সমস্যা হচ্ছে।’

বিএনপির এই আইনবিষয়ক সম্পাদক দলটির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ শীর্ষস্থানীয় নেতাকর্মীদের মামলা পরিচালনা করেন। ৩৩ বছর ধরে আইনপেশায় যুক্ত আছেন সানাউল্লাহ মিয়া।

সূত্রঃ নয়া দিগন্ত

৪৬ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রীর পিএস নিয়োগ””’



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া নতুন মন্ত্রিসভার ৪৬ জন সদস্যের প্রত্যেকের জন্য একান্ত সচিব (পিএস) নিয়োগ দিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার উপ-সচিব পদমর্যাদার এসব কর্মকর্তাদের নিয়োগ দিয়ে স্বাক্ষর করা আলাদা দু’টি আদেশ বুধবার প্রকাশ করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

দ্যা মিনিস্টার্স, মিনিস্টার্স অব স্টেট অ্যান্ড ডেপুটি মিনিস্টার্স অ্যাক্ট, ২০১৬ অনুযায়ী একান্ত সচিব পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

আদেশে বলা হয়েছে, ‘মাননীয় মন্ত্রী/প্রতিমন্ত্রী/উপ-মন্ত্রীগণ যতদিন এ পদ অলংকৃত করবেন অথবা তাদের জন্য পদায়নকৃত একান্ত সচিবগণকে উক্ত পদে বহাল রাখার অভিপ্রায় পোষণ করবেন ততদিন এ নিয়োগ আদেশ কার্যকর থাকবে।’
এতোদিন মন্ত্রিসভার সদস্যদের পছন্দে পিএস নিয়োগ হলেও এবার জনপ্রশাসন থেকে তার ব্যতয় ঘটেছে বলে জানিয়েছেন একজন কর্মকর্তা।

গত ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের পর ৩ জানুয়ারি এমপিদের শপথের পর ৭ জানুয়ারি মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যরা শপথ নেন।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের সঙ্গে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের উপসচিব হাবিবুর রহমান, সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ অথরিটির পরিচালক গৌতম চন্দ্র পাল, কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে অর্থ বিভাগের উপসচিব ড. মো. মুনসুর আলম খান পিএস হিসেবে থাকবেন।



স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে জনপ্রশাসনের উপ-সচিব দেওয়ান মাহবুবুর রহমান, তথ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ হাছান মাহমুদের সঙ্গে জনপ্রশাসনের উপ-সচিব মো. আরিফ নাজমুল আহসান, আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের সঙ্গে বিদ্যুৎ বিভাগের উপ-সচিব আবু সেলিম মাহমুদুল হাসান পিএস হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব ড. মো. ফেরদৌস আলম, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব নুরে আলম সিদ্দীকী দায়িত্ব পালন করবেন।



শিক্ষামন্ত্রী ডা. দী মনির সঙ্গে আরপিএটিসির উপ-পরিচালক ড. আব্দুল আলীম খান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে রাজউকের পরিচালক ড. শাহরিয়ার ফিরোজ, পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নানের সঙ্গে এটুআই প্রোগ্রামের ই-সার্ভিস স্পেশালিস্ট মো. এনামুল হক, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনের সঙ্গে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. আব্দুল ওয়াহেদকে পিএস নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর সঙ্গে কৃষি মন্ত্রণালয়ের উপসচিব পরিতোষ হাজরা, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের সঙ্গে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপসচিব মো. ওয়াহিদুর রহমান, খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের সঙ্গে জনপ্রশাসনের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সহিদুজ্জামান, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সঙ্গে একই মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. মাসুকুর রহমান শিকদার, সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আসিফ আহসান, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের সঙ্গে রাজউকের পরিচালক ড. আবু নঈম মুহাম্মদ আবদুছ ছবুর পিএস থাকবেন।

পরিবেশ, বন জলবায়ু মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের সঙ্গে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আক্তারুজ্জামান, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উ শৈ সিংয়ের সঙ্গে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের উপসচিব বিশ্বাস রাসেল হুসাইন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী দায়িত্বে থাকবেন।



রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজনের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমানের সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব মো. কায়েসুজ্জামান, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে এটুআইয়ের ডোমেইন স্পেশালিস্ট মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান পিএস থাকবেন।

শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদারের সঙ্গে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মোমিন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদের সঙ্গে সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপ-সচিব আহমেদ কবির, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেলের সঙ্গে জননিরাপত্তা বিভাগের উপ-সচিব মো. মজিবর রহমান পিএস হিসেবে থাকবেন।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সঙ্গে বিদ্যুৎ বিভাগের উপ-সচিব আবুল বাশার মো. ফখরুজ্জামান, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরুর সঙ্গে সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপ-সচিব বিজয় কৃষ্ণ দেবনাথ, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ানের সঙ্গে জনপ্রশাসনের উপসচিব বেগম উম্মে রেহানা, নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশেনের প্রধান সমাজকল্যাণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবরাউল হাসান মজুমদার দায়িত্ব পালন করবেন।



প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনের সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপ-সচিব মোহাম্মদ মিকাইল, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে জনপ্রশাসনের উপ-সচিব মো. গোলাম মাওলা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে নরসিংদী জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল ইসলাম, জনপ্রশাস প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনের সঙ্গে বিদ্যুৎ বিভাগের উপসচিব মো. রেজাউল আলম, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য এর সঙ্গে জনপ্রশাসনের উপসচিব মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুকের সঙ্গে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের উপসচিব নুর আলম, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হাসানের সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে উপসচিব মারুফ রশীদ খান, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদের সঙ্গে জনপ্রশাসনের উপ-সচিব হেমন্ত হেরনী কুবি, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদের সঙ্গে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. কামরুল হাসান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমানের সঙ্গে মো. মো হারুন অর রশিদ থাকছেন পিএস হিসেবে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলীর সঙ্গে ভূমি মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো. আ. জলিল, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহর সঙ্গে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের সচিব খন্দকার ইয়াসির আরেফীন, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীর (নওফেল) সঙ্গে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. শাহগীর আলম, পানিসম্পদ মন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীমের সঙ্গে জননিরাপত্তা বিভাগের উপসচিব মো. কামরুল আহসান তালুকদার এবং পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহারের সঙ্গে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেগম সানজিদা ইয়াসমিন পিএসের দায়িত্ব পালন করবেন।

staf.news
admin@news12.us

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *