1. [email protected] : BD News : BD News
  2. [email protected] : Breaking News : Breaking News
গুজবে দিনভর উত্তেজনা | News12
January 22, 2022, 7:58 pm

গুজবে দিনভর উত্তেজনা

Staff Reporter
  • Update Time : Thursday, November 25, 2021
  • 2 Time View

ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে রাজপথ খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে বিএনপির ৮ দিনের কর্মসূচি ষ হাফ ভাড়ার দাবিতে শিক্ষার্থীদের ৪৮ ঘণ্টা আল্টিমেটাম ষ রাজধানী এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক

রাজপথের রাজনীতিতে ছিল কার্যত ‘রাতের নিস্তব্ধতা’। হঠাৎ সেই নিস্তব্ধতা ভেঙে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার সুযোগের দাবিতে বিএনপির সরবতা, গণপরিবহনে হাফ ভাড়া করে প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে শিক্ষার্থীদের ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে গার্মেন্টস শ্রমিকদের আন্দোলন-বিক্ষোভ, সিটি কর্পোরেশনের গাড়ির চাকায় নটরডেম কলেজের ছাত্রের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে মতিঝিলে সড়ক অবরোধ, বেগম জিয়ার মৃত্যুর গুজব ছড়ানো, পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সব ইউনিটে বাড়তি সতর্কতা, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও মাঠের বিরোধীদল বিএনপির নেতাদের উত্তপ্ত বক্তব্যে দিনভর উত্তেজনা বিরাজ করে। বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়েও দিনভর গুজবের ডালপালা ছড়াতে থাকে। তার বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে এর মধ্যেই বিএনপি ৮ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। আইনজীবীরা আইনমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন। দেশের ২ হাজার ৫৮২ সাংবাদিক বেগম জিয়াকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। তবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে সাথে নিয়ে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। জনগণের কাছে ভোট চাওয়ার মতো বিএনপির মুখ নেই, তাই তারা আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে নতুন নতুন ইস্যু খুঁজে বেড়াচ্ছে।

খালেদা জিয়া বিদেশে চিকিৎসা : বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার দাবিতে আন্দোলন জোরদার হয়েছে। গতকাল এ দাবিতে ৮ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। এসব কর্মসূচির মধ্যে বিক্ষোভ, মানববন্ধন, মৌন মিছিল, দোয়া মাহফিল। এর আগে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অবস্থা ক্রিটিক্যাল। তিনি বলেন, ‘ম্যাডাম গুরুতর অসুস্থ। প্রথম থেকেই বলে এসেছি তিনি জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে, এটিই অ্যাপ্রোপ্রিয়েট। তার অবস্থা এখনো ক্রিটিক্যাল (সংকটাপন্ন)। তাকে বিদেশে অ্যাডভান্স সেন্টারে পাঠানো অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে, এটা চিকিৎসকদের কথা। সুনির্দিষ্টভাবে তারা দেশের নামও বলেছেন। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য বা জার্মানি এ তিনটি দেশের যে কোনো জায়গায় হতে হবে।’ অতপর মধ্যরাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন সাংবাদিকদের জানান, ‘চিকিৎসকদের আপ্রাণ চেষ্টা সত্ত্বেও ম্যাডামের শরীর যথাযথভাবে সাড়া দিচ্ছে না। তার শরীর ওষুধ গ্রহণ করতে পারছে না।’ এরপর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, ব্লগ, টুইটারে ‘বেগম জিয়া মরা গেছেন’ এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এতে সারাদেশ থেকে উদ্বিগ্ন বিএনপি নেতাকর্মীরা তাদের প্রিয় নেত্রীর খোঁজখবর নিতে শুরু করেন। এভারকেয়ার হাসপাতালে ছুটে যান বিএনপির কিছু নেতাকর্মী। বিএনপির একটি সূত্র জানায়, অভ্যন্তরীণ রক্তক্ষরণের কারণে খালেদা জিয়ার হিমোগ্লোবিন ও রক্তচাপ কমে গেছে। ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত। রক্তও দিতে হচ্ছে। ২৩ নভেম্বর থেকে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। তখন থেকে বিভিন্ন ধরনের গুজব ছড়াতে থাকে। গতকাল সবখানে খালেদা জিয়ার অবস্থা কেমন সেটাই ছিল আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু। গত ১২ নভেম্বর গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ৭৬ বছর বয়সি খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। করোনা থেকে ভাল হলেও তিনি আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস ও চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন।

গতকাল নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে যৌথসভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ম্যাডামের চিকিৎসার ব্যাপারে বিদেশি চিকিৎসকদের পরামর্শ নেওয়া হচ্ছে। দল ও পরিবারের পক্ষ থেকে সবার সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। তার অবস্থা আগের মতোই আছে। ডাক্তারদের পক্ষ থেকে যতটা সম্ভব সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন। মৃত্যুর গুজবের বিষয়ে তিনি বলেন, আমি আগেও বলেছি এসব গুজবের কোনো ভিত্তি নেই। আপনারা সরাসরি আমাকে ফোন করবেন। সুকৌশলে কোনো মহল এ গুজবগুলো ছড়াচ্ছে। সমাজে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। সমাজের বিভিন্ন মহল থেকে চাপ সৃষ্টি শুরু হয়েছে। সব পরিস্থিতি বুঝেই আমাদের কর্মসূচিগুলো দিতে হয়। আমরা কখনোই কোনো হঠকারী কর্মসূচির দিকে যেতে চাই না। সারা দেশে রেড এলার্টের বিষয়ে তিনি বলেন, রেড এলার্ট কোথায়, হোয়্যার। এগুলো আপনারা কোথায় পান? সরকার কি কোনো বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে?

সংবাদ সম্মেলন করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা এবং ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি খালেদা জিয়াকে হত্যা করা হচ্ছে। খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। তিনি কতক্ষণ, কয় মিনিট, কয় দিন বাঁচবেন সেটা বলতে পারব না। তবে এটা বলতে পারি তিনি চরম ক্রান্তিকালে আছেন। চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে না দিয়ে তাকে হত্যা করা হচ্ছে। ওনার মুখ দিয়ে রক্তপাত হচ্ছে। পায়খানার রাস্তা দিয়ে রক্তপাত হচ্ছে। ব্লাড প্রেসার ১০০ নিচে নেমে এসেছে। আমি সেখানে দেখেছি খালেদা জিয়াকে রক্ত দেওয়া হচ্ছে। ওনাকে বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ না দিলে হত্যা করা হলে আইনমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী হুকুমের আসামি হবেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে অসুস্থ রাজনীতি না করার জন্য বিএনপিকে অনুরোধ জানিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, খালেদা জিয়াকে অসুস্থ রেখে বিএনপি রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করতে চায়। এতে করে তাকে অসম্মান করা হচ্ছে। অতীতেও আমরা দেখেছি খালেদা জিয়ার হাঁটুতে ও গায়ের তাপমাত্রা বেড়ে গেলেও তাকে বিদেশ পাঠানোর দাবি তোলা হয়েছে। কিছু হলেই বিদেশ পাঠাতে হবে এই জিকির তোলার কারণ কী? এগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

বিভিন্ন পয়েন্টে সড়ক অবরোধ : রাজধানী ঢাকা যেন গতকাল থমকে দাঁড়িয়েছিল। যারা রাস্তায় বের হয়েছেন তাদের পড়তে হয়েছে অবর্ণনীয় দুর্ভোগে। মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারে ছিল দীর্ঘ যানজট। একই চিত্র দেখা গেছে রাজধানীর বেশিরভাগ সড়কে। দিনের অনেকটা সময়জুড়ে মিরপুর, উত্তরা, কুড়িল বিশ্বরোড ছিল অবরুদ্ধ। গার্মেন্টস শ্রমিকরা বেতনভাড়ার দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে। বিভিন্ন দাবির কথা জানিয়ে মিরপুর ১০, কাফরুল, ইব্রাহিমপুর, কচুক্ষেত, মিরপুর ১৩ ও ১৪ নম্বরে পোশাক শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে। এসময় তাদের ওপর হামলা করেছে একটি ছাত্র সংঘঠনের নেতাকর্মীরা। মিরপুর-১৩ নম্বরে সেন্টেক্স গার্মেন্টসের শ্রমিকরা জানান, বেতন ভাতার জন্য আন্দোলন করছি। কারখানার মালিক লোক ভাড়া করে আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। হামলায় শ্রমিক আহত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর মিরপুর ১৩ ও ১৪ এলাকার পোশাক কারখানা থেকে শ্রমিকরা দলে দলে বের হয়ে আসে। তারা সংঘবদ্ধ হয়ে হামলাকারীদের নেতাকর্মীদের ধাওয়া দেয়। এসময় তারা পিছু হটে। শ্রমিকরা এসময় আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের অস্থায়ী দুটি অফিসে ভাঙচুর করে। সহকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে মিরপুর ১০ নম্বর বাসস্ট্যান্ডে পল্লবী ট্রাফিক জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় ভাঙচুর করেছে পোশাকশ্রমিকরা। রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোডেও গার্মেন্টস শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে।

বেতন ভাতার দাবিতে ঢাকা টু চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে ডেনিম নামে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। তারা সকাল সাড়ে ৯টা থেকে মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে সড়কের দুইপাশে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। কুমিল্লা ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল চৌধুরী জানান, পোশাক কারখানার শ্রমিকরা কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার হাড়িখোলায় মহাসড়কে অবস্থায় নেয়। যার ফলে ঢাক টু চট্টগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

মতিঝিলে সড়ক অবরোধ : ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটরডেম কলেজের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে তার সহপাঠীরা। তারা ঘটনার সুষ্ঠু বিচার ও দোষী চালকের ফাঁসির দাবি জানায়। কয়েকশ’ শিক্ষার্থী বিকেল ৩টা থেকে মতিঝিল, গুলিস্তান সড়কে অবরোধ করেন, এ সময় আশপাশের সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

শিক্ষার্থীদের ৪৮ ঘণ্টা আল্টিমেটাম : রাজধানীসহ সারাদেশের বাসে ছাত্রছাত্রীদের হাফ ভাড়ার দাবির আন্দোলন ক্রমেই জোরালো হচ্ছে। সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করেছেন বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা। গণপরিবহনে হাফ ভাড়া নিশ্চিত ও যাত্রী হয়রানি বন্ধ করাসহ ৫ দফা দাবি বাস্তবায়নে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন। হাফ ভাড়ার বিষয়ে সরকারিভাবে প্রজ্ঞাপন জারির দাবির আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের সমর্থন করছে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন। রাজধানীর সায়েন্সল্যাব মোড়, নীলক্ষেত মোড়, টিএসসি ও বকশীবাজার মোড়, অবরোধ করে আন্দোলন কর্মসূচি থেকে এ দাবি করেন ঢাকা কলেজ, ঢাকা সিটি কলেজ, ধানমন্ডি আইডিয়াল কলেজের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী ও ৮টি প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠন। তারা সরকারকে ৪৮ ঘণ্টা আল্টিমেটাম দিয়েছে। এ সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের জন্য বাস ভাড়া হাফ করে প্রজ্ঞাপন জারির দাবি জানিয়েছে। না হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে। একই দাবিতে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুরসহ সারাদেশে ছাত্রছাত্রীরা বিক্ষোভ করেছে। এই বিক্ষোভের সময় রাজধানীতে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। বাস মালিকরা গুন্ডা ভাড়া করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর লেলিয়ে দিয়েছিল। যা ছাত্ররা প্রতিহত করে। ছাত্ররা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে দাবি না মানলে সারা দেশে কর্মসূচি দেয়া হবে।

সাংবাদিকদের দাবি : দেশের ২৫৮২ সাংবাদিক খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল বুধবার একটি যৌথ বিবৃতিতে সাংবাদিকেরা বলেন, খালেদা জিয়াকে বাঁচাতে হলে বিদেশে অ্যাডভান্স সেন্টারে নিয়ে চিকিৎসা প্রয়োজন। সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে মানবিক দিকবিবেচনা করে তাকে অবিলম্বে বিদেশে চিকিৎসা নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হোক। একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী, বয়োজ্যেষ্ঠ নাগরিক, একজন নারী হিসেবে, উপরন্তু একজন কারাবন্দির যথাযথ সুচিকিৎসা পাওয়া ন্যূনতম মানবাধিকারের অংশ। একজন দেশপ্রেমিক রাজনীতিবিদের সামগ্রিক অবদান এবং তার বার্ধক্যের এ কঠিন সময়ের কথা বিবেচনা করে সরকার রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে খালেদা জিয়ার প্রতি সহানুভূতিশীল আচরণ প্রদর্শন করবে।

উৎসঃ ইনকিলাব

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

Releted
কপিরাইট : সর্বস্বর্ত সংরক্ষিত (c) ২০২২
Develper By ITSadik.Xyz