ব্যাংকে পড়ে আছে বিপুল অঙ্কের টাকা। অথচ, সেগুলোর কোনো দাবিদার নেই। সম্প্রতি কালো টাকা নিয়ে চাঞ্চল্যকর এসব তথ্য দিয়েছে সুইজারল্যান্ড সরকার। আর সাড়ে তিন হাজার জনের সেই তালিকায় রয়েছেন বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

জানা গেছে, ওই তালিকায় অন্তত ১০ জন ভারতীয় রয়েছেন। কয়েক জন পাকিস্তানি নাগরিকের অ্যাকাউন্টও রয়েছে সুইস ব্যাঙ্কে। এ ছাড়াও অন্যান্য দেশের নাগরিকদেরও অ্যাকাউন্ট রয়েছে।

২০১৫ সালে ‘ডর্ম্যান্ট’ বা দীর্ঘদিন ধরে কোনো লেনদেন হয় না এমন অ্যাকাউন্টগুলো নিয়ে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করে সুইজারল্যান্ড সরকার। যাতে ওই অ্যাকাউন্টগুলোর ওয়ারিশরা উপযুক্ত তথ্য প্রমাণ দিয়ে জমা থাকা টাকা দাবি করতে পারেন।

কিন্তু তার পর বহু সময় কেটে গেলেও সুইস ব্যাংকে জমা ওই টাকার মালিকদের কেউ দাবিই করেননি। প্রত্যেক বছরই এমন ‘অব্যবহৃত’ অ্যাকাউন্টের সংখ্যা বাড়ছে বলে সুইস সরকার সূত্রে জানা গেছে। এখন ওই ধরনের অ্যাকাউন্টের সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিন হাজার।

২০১৫ সালের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সব অ্যাকাউন্ট মিলে সাড়ে চার কোটি সুইস ফ্রাঁ বা তিনশ কোটি টাকার বেশি জমা রয়েছে।

এর মধ্যে কোনো কোনো অ্যাকাউন্ট ভারতে ব্রিটিশ শাসনের শেষের দিকে খোলা হয়েছিল। কোনোটি আবার খোলা হয় ১৯৫৫ সালে। এছাড়াও ৮০টি দাবিহীন সেফটি বক্সও রয়েছে সুইস ব্যাংকে।

উৎসঃ কালের কণ্ঠ