নিউজ ডেস্কঃ বিশাল বাজেটের চাপে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক ডেপুটি মেয়র আব্দুস সালাম।

শুক্রবার (১৪ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে এমন মন্তব্য করেন তিনি।গণবিরোধী লুটপাটের বাজেট প্রত্যাখ্যান শীর্ষক এই মানববন্ধনের আয়োজন করে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন এবং ফিউচার অফ বাংলাদেশ।

সালাম বলেন, পরিষ্কার ভাবে যেটা আমি বলতে চাই অনির্বাচিত সংসদের বর্তমান অর্থমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর জাতির সামনে বাজেট দেয়ার নৈতিক কোন অধিকার নেই। বিশাল এই বাজেট দেয়ার আগে বড় বাজেটের চাপে অর্থমন্ত্রী নিজেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

তিনি বলেন, এই বিশাল বাজেট বহন করার মতো অবস্থা বর্তমানে জাতির নাই। এই বাজেট যদি জাতিকে বহণ করতে হয় তাহলে সমস্ত জাতিই অসুস্থ হয়ে পড়বে। এই বাজেট জনগণের পকেট কাটার, গরিবদের আরও গরিব করবে।

এটি জনগণের ওপর চাপিয়ে দেওয়া বাজেট। সরকারের ভেজাল বিরোধী অভিযানের সমালোচনা করে সালাম বলেন, যে সরকার নিজেই একটি ভেজাল সরকার। জনগণ তাদেরকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে নাই, তাদের ভেজাল বিরোধী অভিযান চালানোর নৈতিক কোন অধিকার নেই।

তাই আমরা বলব, আমাদের একটাই দাবি জনপ্রতিনিধি বলতে যেটা বোঝায় সেটার জন্য অনতিবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে জাতীয় সংসদে মন্ত্রীরা বাজেট দিবে সেটাই আমরা প্রত্যাশা করি।

দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে এবং ফিউচার অফ বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক মো. শওকত আজিজের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান,

মুক্তিযোদ্ধা দলের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আক্তার হোসেন, মানবাধিকার সমিতির মহাসচিব আ হ ম মুস্তফা কামাল, বিএনপি নেতা জামাল হোসেন টুয়েল ও সাজ্জাদ হোসেন প্রমূখ বক্তব্য দেন।

আরো পড়ুন>> চাঁদপুর শহরের পুরান বাজারে সার্বজনীন দূর্গা মন্দির ও প্রতিমা ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। এঘটনা তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ৫ জনকে আটক করেছে। বৃহস্পতিবার দিনগত রাতে দাসপাড়া এলাকায় এঘটনা ঘটায় দুর্বৃত্তরা।

শুক্রবার সকাল ৯টায় খবর পেয়ে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করেন। আটকরা হচ্ছেন-দাস পাড়া এলাকার বাসিন্দা মুন্নাফ দিদারের ছেলে ফরিদুল ইসলাম দিদার (৫০), ইদ্রিস দিদার, রাজু দিদার, আবুল ডাক্তারের ছেলে আতিক ও আব্দুল আলিম।

স্থানীয়রা জানায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে রাতে দূর্গা মন্দিরে হামলা চালায় বাসেত চৌধুরী, আবদুল কাদের মিজি ও খোরশেদ আলমসহ সংঘবদ্ধ একটি চক্র। রাতে তারা পরিকল্পিতভাবে দূর্গা মন্দিরের অবকাঠামো ভাংচুর করে অন্যত্র ফেলে দেয়ে এবং প্রতিমা ভাঙচুর করে।

এছাড়া পাশবর্তী কালি মন্দিরের একটি প্রতিমা ভাংচুর করা হয়। এঘটনার খবরে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে। খবর পেয়ে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মাজেদুর রহমান খান ও পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন এবং উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করেন।

চাঁদপুর মডেল থানায় পুলিশ জানায়, এই ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। চাঁদপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) জিহাদুল কবির বলেন, ঘটনাটি জানার পর তাৎক্ষনিক আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি।

ভাঙচুর করা ও কিছু কিছু মালপত্র বিভিন্ন বাড়ী থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। আমরা ধারণা করছি তারাই এরসঙ্গে জড়িত। এখন পর্যন্ত ৪ জনকে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ সুপার বলেন। বাকীদেরও আটক করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি আশ^স্ত করেন।

নিউজ১২/নি

staf.news
admin@news12.us