রংপুরের পীরগাছা থেকে ইয়াবাসহ পুলিশের এক উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও তার পাঁচ সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে পীরগাছা উপজেলার অন্নদানগর এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে পীরগাছা থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) আজিমুদ্দিন জানান, ইয়াবার বড় চালান হাতবদল হচ্ছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে অন্নদানগরে অভিযান চালানো হয়।

এ সময় কুড়িগ্রাম সদর থানা উপ-পরিদর্শক ইজ্জত আলী ও স্থানীয় পাঁচ যুবককে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করা হয়। ইজ্জত আলী অন্নদানগর ইউনিয়নের পঞ্চানন গ্রামের মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে।

গ্রেফতারকৃত অপর পাঁচজন হলেন- জাদু লস্কর এলাকার নুরুল ইসলামে ছেলে মামুন মিয়া, একই গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে আরিফ হোসেন, সাইফুল ইসলামের ছেলে জিয়াউর রহমান, আকতার ভূঁইয়ার ছেলে পিয়াল ও অন্নদানগরের আফসার ভূঁইয়ার ছেলে পিংকু। তারা সকলেই পীরগাছা উপজেলার বাসিন্দা।

এদিকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করা হলেও ইয়াবার পরিমাণ নিয়ে তথ্য দিতে অপারগতা দেখিয়েছেন থানার ওসি। তবে থানা সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ২৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার দেখানো হয়েছে।

যাজকের স্ত্রীর ‘কর্মে’ তোলপাড়

রাশিয়ার উরাল এলাকার একজন অর্থোডক্স যাজককে শাস্তি হিসাবে প্রত্যন্ত একটি গ্রামে বদলি করা হয়েছে, কারণ লেন্ট চলার সময় তার স্ত্রী একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন।

লেন্ট হচ্ছে ইস্টার সানডের আগে খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীদের একটি ধর্মীয় প্রক্রিয়া, যে সময় অনেকে উপবাস করেন এবং বিলাসী দ্রব্য ব্যবহার এড়িয়ে চলেন।

ওই যাজকের স্ত্রী, ওকসানা যোটোভা ম্যাগনিটোগোরস্ক শহরের একটি সৌন্দর্য চর্চা কেন্দ্র পরিচালনা করেন।

সম্প্রতি তিনি ‘মিস সেনসুয়ালিটি’ পুরস্কার পান।

তবে তিনি ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন, যখন রাশিয়ার পিকাবু নামের একটি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করা হয় যে, তিনি একজন অর্থোডক্স যাজকের স্ত্রী।

যখন গীর্জার লোকজন এই তথ্যটি জানতে পারে, সাথে সাথে যাজক সের্গেই যোটভকে ম্যাগনিটোগোরস্ক ক্যাথেড্রাল থেকে অব্যাহতি দেয়া হয় এবং ৬৫ কিলোমিটার দূরের একটি গ্রামে বদলি করা হয়, যেখানে জনসংখ্যা মাত্র ৪ হাজার।

আর্চপ্রিস্ট ফিওডর সাপ্রিকিন বলেছেন, ‘একজন যাজকের স্ত্রীর এভাবে একটি অনুষ্ঠানে নিজেকে খোলামেলাভাবে তুলে ধরাটা একটি বড় পাপ।’

তিনি রায় দিয়েছেন, যতদিন তার স্ত্রী প্রায়শ্চিত্ত না করবেন, ততদিন আর ওই যাজককে পুনর্বহাল করা হবে না।

‘তিনি কেমন যাজক, যে তার নিজের পরিবারকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না? তিনি কিভাবে একটি ধর্মীয় সমাবেশ নিয়ন্ত্রণ করবেন?’ তিনি প্রশ্ন তুলেছেন।

এই ঘটনাটি রাশিয়ায় ব্যাপক আলোড়ন তৈরি করেছে। দেশটির অনেক সংবাদ মাধ্যম এবং অনলাইন ফোরামে খবরটি প্রকাশিত হয়েছে।

একজন লিখেছেন, ‘এই হলো ব্যাপার, যা এই যাজকের স্ত্রীর সম্পর্কে জানা উচিত। এবং যাজকের ব্যাপারেও। তারা বয়ান করে এক জিনিস আর প্রাকটিস করে অন্য জিনিস।’

তবে অনেকে চার্চের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন এবং এই যুগলের পক্ষে দাঁড়িয়েছেন।

‘কেন তিনি নিজের জীবন উপভোগ করতে পারবেন না? এখনো কি এমন মানুষ আছে যারা বিশ্বাস করে যাজকরা সব অন্যায়ের ঊর্ধ্বে? তারাও সাধারণ মানুষ, যারা ভালো একটি চাকরি করছেন।’ পিকাবুর একজন মন্তব্যকারী, যেখানে সবচেয়ে বেশি লাইক পড়েছে।

আরেকজন প্রশ্ন তুলেছেন, ‘সমস্যাটা কোথায়? বাইবেলে কোথায় বলা আছে যে, একজন যাজকের সুন্দরী স্ত্রী থাকতে পারবে না?’

সূত্র : বিবিসি

staf.news
admin@news12.us