বাংলাদেশে গণতন্ত্র নিয়ে উদ্বেগ পেন্টাগন শীর্ষ কমান্ডারের

0
13

বাংলাদেশের গণতন্ত্রের অবস্থা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ইউএস ইন্দো-প্যাসিফিক কমান্ডার চিফ অ্যাডমিরাল ফিলিপস ডেভিডসন। মার্কিন সিনেটের আর্মড সার্ভিসেস কমিটির কংগ্রেশনাল শুনানিতে তিনি এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।খবর ইকোনোমিক টাইমসের।

ফিলিপস বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সত্যিকারার্থে দেশে একদলীয় শাসন কায়েমের চেষ্টা করছেন।

ডেভিডসন বলেন, বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার। এছাড়া আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা, দক্ষিণ এশিয়ায় সন্ত্রাস দমন, সহিংস উগ্রপন্থা দমন, মানবিক সহযোগিতায় সমর্থন, ত্রাণ সহায়তা, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী মিশনসহ যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা অংশীদার বাংলাদেশ।দেশটিতে গণতন্ত্র হুমকির মুখে।

এসময় তিনি ৭ লাখ রোহিঙ্গা নিয়ে বাংলাদেশে যে সংকট সৃষ্টি হয়েছে সে বিষয়েও আলোকপাত করেন।

এর কয়েকঘণ্টা আগেই কংগ্রেসম্যান ইলিয়ট এঙ্গেল নেতৃত্বে প্রতিনিধি পরিষদের ৬ জন প্রভাবশালী আইনপ্রণেতার উদ্বেগ জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে একটি চিঠি লেখা হয়।

চিঠিতে বলা হয়, তিনি বাংলাদেশের গণতন্ত্র রক্ষা করার জন্য ‘সময়মত যথাযথ প্রতিক্রিয়া’ চান। নির্বাচনে ব্যাপক ধরপাকড় এবং ভোটারদের দমনের অভিযোগগুলো গুরুত্বসহ নেয়া উচিত।

উপজেলা নির্বাচন: সুনামগঞ্জে ৪০ জনের প্রার্থীতা বাতিল

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে সুনামগঞ্জের ১০টি উপজেলায় নির্বাচন আগামী ১০ মার্চ। নির্বাচনে অংশ নিতে চেয়ারম্যান পদে ৪১, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮১ ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন।

মঙ্গলবার মনোনয়ন যাচাই-বাচাই শেষে চেয়ারম্যান পদে ৩ জনসহ মোট ৪০ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। মনোনয়ন বাছাইয়ের শেষ দিন মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এসব যাচাই-বাছাই সম্পন্ন করা হয়।

হলফনামায় ত্রুটি, আয়কর রির্টান দাখিল না করা, ঋণ খেলাপী, পূর্বের পদ থেকে পদত্যাগ না করা, ভোটার তালিকায় ত্রুটিসহ বিভিন্ন কারণে সুনামগঞ্জ জেলা রির্টানিং অফিসার অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক শফিউর রহমান এসব মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন।

জেলা রির্টানিং অফিসার শফিউর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ১৬২ জন প্রার্থীর শুনানির দীর্ঘ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে যাচাই-বাছাইয়ের ফলাফল জানাতে বিলম্ব হয়েছে।

সুনামগঞ্জ সদর: সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। এরা হচ্ছেন-শাহ রুবেল আহমদ ও খোকন মিয়া এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাদিয়া বখত সুরভী ও মিনারা বেগম।

দিরাই: দিরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ১ জন এবং ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। ভোটার তালিকায় ত্রুটি থাকায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রঞ্জন রায়ের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল হক, ছাত্রলীগ নেতা ইমরান আহমদ, তোফায়েল আহমদ চৌধুরী এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন বাতিল হয়েছে হেলেনা বেগমের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

দোয়ারাবাজার: দোয়ারাবাজার উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে হারুন মিয়া, নূর আলী ইমরান, জিয়াউর রহমান, মো. মারফত আলী, গুরু দাস দে ও জালাল উদ্দিনসহ ৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রির্টানিং অফিসার।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ: দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় ইউপি সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ না করায় খাইরুন নেছা নামে এক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

বিশ্বম্ভরপুর: বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়পত্র জমা দিয়েছেন। এদের মধ্যে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আবদুল মান্নান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মদিনা আক্তারের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

শাল্লা: শাল্লা উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। তারা হলেন, দিপু রঞ্জন দাস, আবদুল মজিদ, কালিপদ দাস, সাইফুর রহমান , অরিন্দ্রম চৌধুরী ও পংকজ কুমার। নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে অমিতা, আজিজুন নেছা, অলি বেগম, মোছা নেহার বেহম ও ভ্রেইনি তালুকদারের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

জামালগঞ্জ: জামালগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ১ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১ জন সহ ৬ জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

তারা হলেন চেয়ারম্যান পদে রশিদ আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান পদে জুবায়ের আবেদীন, শাহাবুদ্দিন, আবদুল কুদ্দুস, আসাদুল আলম ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে রাবেয়া সিদ্দিকার মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

ধর্মপাশা: ধর্মপাশা উপজেলায় মোট ৪ জনের মনোনয় বাতিল করা হয়। চেয়ারম্যান পদে শামীম আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আবদুল হাই তালুকদার, আবুল কাশেম , ফারুক আহমদ ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে শান্তা চৌধুরীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

ছাতক ও তাহিরপুরের প্রার্থীদের কোনো মনোনয়নপত্র বাতিল হয়নি। মনোনয়ন বাতিল হওয়া অধিকাংশ প্রার্থীরা তাদের প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ার জন্যে নিয়ম মাফিক আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন।