আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা ‘গাঙচিল’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত ‘গাঙচিল’ সিনেমার শুটিংয়ে আহত হয়েছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা।

রোববার সকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরমণ্ডলে শুটিংস্থলে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার শিকার হন তারা। সেখানে ‘গাঙচিল’ সিনেমার শুটিং করছিলেন এই দুই নায়ক-নায়িকা। পরে দুপুরে ফেরদৌস ও পূর্ণিমাকে সেখানকার বসুরহাট সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

দুর্ঘটনার বিষয়টি সিনেমাটির পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রোববার সকালে মোটরসাইকেলের একটি দৃশ্যের শুটিং হচ্ছিল।

শনিবারও এই দৃশ্যের শুটিং হয়েছে। মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন পূর্ণিমা আর তার পেছনে বসেছিলেন ফেরদৌস। হঠাৎ রাস্তায় স্লিপ কেটে তাদের মোটরসাইকেলটি উল্টে গেলে ফেরদৌস ও পূর্ণিমা ছিটকে রাস্তার পাশে পড়ে যান। এতে দুজন ব্যথা পান। দুজনেরই শরীরের কিছু স্থানে কেটে গেছে।

সূত্র জানায়, ‘সকালে শুটিং চলাকালীন সময়ে মোটরসাইকেলে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে ফেরদৌস কাঁদে আর পূর্ণিমা পায়ে ব্যথা পেয়েছেন। পূর্ণিমার পা ফুলে গেছে। ব্যথা বাড়ায় দুপুরে তাদের বসুরহাট সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।’

বসুরহাট সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসক ডা. আ ক ম আব্দুল হক যুগান্তরকে বলেন, ফেরদৌস ও পূর্ণিমা এখানে এসেছিলেন। তারা দুজনই ব্যথা পেয়েছেন।

কিছু জায়গায় কেটে গেছে। তবে তাদের শরীরের কোনো জায়গায় ফ্রেকচার হয়নি। তবুও এক্স-রে করানো হয়েছে। সোমবার রিপোর্ট পাওয়া যাবে। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে তারা চলে গেছেন।

উল্লেখ্য, ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চরমণ্ডল ও চর এলাহিতে ‘গাঙচিল’ সিনেমাটির শুটিং করছেন ফেরদৌস ও পূর্ণিমা।

নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল পরিচালিত এ সিনেমায় নায়ক ফেরদৌস সাংবাদিক চরিত্রে ও নায়িকা পূর্ণিমা একজন এনজিও কর্মীর চরিত্রে অভিনয় করছেন।

অতিথি শিল্পি হিসেবে রয়েছেন কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন, মারুফ রেহমান ও প্রিয় চট্টোপাধ্যায়।

পরিচালক নঈম সাংবাদিকদের বলেছিলেন, আগামী মার্চের শেষ দিকে সিনেমাটির শুটিংয়ের কাজ শেষ হবে। চলতি বছরের মাঝামাঝির দিকে সিনেমাটি দর্শক দেখতে পাবেন বলে তিনি আশা করেন।

staf.news
admin@news12.us

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *